Mutual Fund: লক-ইন পিরিয়ডের আগে মিউচুয়াল ফান্ডে টাকা তুলবেন? কত টাকা চার্জ লাগবে? জানুন

Gourav Mondal

Updated on:

how-can-i-withdraw-money-from-mutual-fund-before-lock-in-period

বর্তমান সময়ে অর্থ বিনিয়োগের একটি জনপ্রিয় অপশন হিসেবে বিনিয়োগকারীরা মিউচুয়াল ফান্ডকে (Mutual Fund) বেছে নিতে চান। মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বেশ কিছুটা ঝুঁকি থাকে। তবে ঝুঁকির সম্ভাবনা থাকলেও মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করে বিপুল সংখ্যক টাকা লাভের সম্ভাবনা থাকে। কারণ মিউচুয়াল ফান্ডে গ্রাহক যে পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করেন তার সঙ্গে সংযুক্ত হয় মোটা হারে সুদের টাকা। ফলে মেয়াদ শেষে গ্রাহক সুদ সহ প্রচুর টাকা লাভ করতে পারেন। তবে মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে অধিক সতর্কতা বজায় রাখা প্রয়োজন। কারণ এতে সতর্ক ভাবে বিনিয়োগ না করলে লোকসান হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে। 

মিউচুয়াল ফান্ড (Mutual Fund) থেকে টাকা তোলার ক্ষেত্রে কয়েকটি বিশেষ নিয়ম মেনে চলতে হয়। অনলাইন এবং অফলাইন উভয় পদ্ধতিতেই মিউচুয়াল ফান্ডের টাকা তোলা যায় (Mutual Fund Money Withdraw)। তবে এই টাকা তোলার জন্য নির্দিষ্ট সময়সীমা আছে। টাকা তোলার ক্ষেত্রে এটি কী কী বিষয় হলে মাথায় রাখবেন সেগুলি জেনে নিন এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে। 

কীভাবে মিউচুয়াল ফান্ড থেকে টাকা তুলবেন (How To Withdraw Mutual Fund Money)

মিউচুয়াল ফান্ড রিডেম্পশন পদ্ধতি

মিউচুয়াল ফান্ড থেকে টাকা তোলার সময় রিডেম্পশন পদ্ধতির কথা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। প্রতিটি স্কিমের ক্ষেত্রেই টাকা তোলার জন্য আলাদা আলাদা পদ্ধতি থাকে। এই পদ্ধতির কথা আগে থেকে জেনে নিয়ে সমস্ত নিয়মকানুন মেনে মিউচুয়াল ফান্ডের টাকা তোলার কথা ভাবা উচিত।

হোল্ডিং পিরিয়ড

যে কোনো অর্থ বিনিয়োগ স্কিমের ক্ষেত্রেই টাকা জমা করার নির্দিষ্ট হোল্ডিং পিরিয়ড রয়েছে। হোল্ডিং পিরিয়ড কথার অর্থ হল সংশ্লিষ্ট সংস্থার তরফ থেকে একটি নির্দিষ্ট সময় সীমা উল্লেখ করা হয়। সেই সময়সীমার আগে গ্রাহকরা টাকা তুলতে পারবেন না। কোনো গ্রাহক এই হোল্ডিং পিরিয়ডের আগে টাকা তুলে নিলে তাকে এক্সিট চার্জ দিতে হবে।

এনএভি যাচাইকরণ

ফিউচুয়াল ফান্ড থেকে টাকা তোলার আগে অবশ্যই এনএভি যাচাই করে নেওয়া প্রয়োজন। যেহেতু শেয়ার বাজারের দর স্থির নয়, ক্রমাগত ওঠানামা করে, তেমনই এনএভি-ও ওঠানামা করে। তাই টাকা তোলার আগে মাথায় রাখা উচিত যখন এনএভি নিচে নেমে যাবে সেই সময় টাকা তুলে নিলে নিজের লোকসান হবে।

রিডেম্পশন পদ্ধতি

অর্থ বিনিয়োগকারী ব্যক্তি তার মিউচুয়াল ফান্ড থেকে কিভাবে টাকা তুলতে চান সে বিষয়ে তিনি নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।  এক্ষেত্রে ফিজিক্যাল সার্টিফিকেট এবং ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের মধ্যে যে কোনো একটি বিকল্প বেছে নেওয়া যেতে পারে।

এক্সিট চার্জ

নির্দিষ্ট সময়ের আগে টাকা তোলার ক্ষেত্রে গ্রাহকদের এক্সিট চার্জ দিতে হয়। প্রতিটি স্কিম বা প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে এই এক্সিট লোড আলাদা হয়। যেমন বাজাজ ফাইনান্স 1 শতাংশ এক্সিট চার্জ নিয়ে থাকে। তাই নির্দিষ্ট ফান্ড থেকে টাকা তোলার আগে এক্সিট লোড কত দিতে হবে তা জেনে নেওয়া প্রয়োজন। শুধু তাই নয়, কখন টাকা তুলে নিলে এক্সিট লোড দিতে হবে না সেটিও জেনে নেওয়া উচিত।

ব্যাংকের বিবরণ

টাকা তোলার আগে অবশ্যই দেখে নিতে হবে মিউচুয়াল ফান্ডের সঙ্গে যেন নিবন্ধিত ব্যাংক অ্যাকাউন্ট লিঙ্ক করা থাকে।

KYC

ব্যক্তিগত তথ্যের যদি কোন পরিবর্তন ঘটে সেক্ষেত্রে অবশ্যই কেওয়াইসি আপডেট করে নিতে হবে। অন্যথায় মিউচুয়াল ফান্ড থেকে টাকা তোলার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে হবে।

ট্যাক্স

মিউচুয়াল ফান্ডের বিনিয়োগকারীদের নির্দিষ্ট নিয়ম অনুসারে কর দিতে হয়। তাই এক্ষেত্রে সব সময় ওয়াকিবহাল থাকা প্রয়োজন। দরকারে ট্যাক্স সম্পর্কিত বিষয়ে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া উচিত।